pm-viduনিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত চার্জশিট দিয়ে তাদের বিচার সম্পন্নের ব্যবস্থা করতে প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, “যাতে তারা ভবিষ্যতে এ ধরনের নৃশংস ঘটনা ঘটানোর সাহস না পায়।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “যারা পেট্রলবোমা ছুঁড়ে মানুষ পুড়ে মেরেছে, বাস, ট্রাক ও অন্যান্য যানবাহন জ্বালিয়েছে তাদের গ্রেফতার করা ও তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরই যথেষ্ট নয়। তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত চার্জশিট দিয়ে তাদের বিচার সম্পন্ন করতে আপনাদের যথোপযুক্ত পদক্ষেপ নিতে হবে। এ ব্যবস্থা করা না হলে দুষ্কৃতিকারীরা আদালত থেকে জামিন নেয়ার পর আবারো এ ধরনের নৃশংস কর্মকা- চালাবে।”

তিনি সোমবার বাংলাদেশ সচিবালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বগুড়া ও সাতক্ষীরা জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সঙ্গে মতবিনিময়কালে একথা বলেন।

এ ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত ছিল রাজশাহী ও খুলনা বিভাগ এবং ঝিনাইদহ, নড়াইল, জয়পুরহাট ও সিরাজগঞ্জ জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটি।

শেখ হাসিনা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, “জনগণের জীবনের নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে সবচেয়ে বড় দায়িত্ব। যারা জীবন্ত মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে তাদের অবশ্যই শাস্তি দিতে হবে। এজন্য জনগণের জীবন নিরাপদ না হওয়া পর্যন্ত যৌথ অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে।”

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের পর সন্ত্রাসীদের দমনে বেশি নজর দিতে পারেনি। কারণ ওই সময় সরকার উন্নয়নের উপর অধিক গুরুত্ব দিয়েছে। এজন্য চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি থেকে আমাদের খেসারত দিতে হয়েছে। সে সময় আমরা দেখেছি বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের অবিরাম হরতাল ও অবরোধ এবং বিএনপি-জামায়াত চক্রের মানুষ হত্যা ও নির্যাতন।

শেখ হাসিনা বলেন, “এসব কিছু দেখে আমি মনে করি নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান ও মোবাইলকোর্ট পরিচালনা অব্যাহত রাখতে হবে। যাতে তারা আবারো সন্ত্রাস ও ধ্বংসাত্মক কর্মকা- সংঘটনের সাহস না পায়।

LEAVE A REPLY