উপজেলা নির্বাচনে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচন করছে তাই আমাদের (আওয়ামী লীগের) ভোট ভাগাভাগি হয়ে যাচ্ছে বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

মঙ্গলবার রাজধানীর বাংলামটর সোহাগ কমিউনিটি সেন্টারে রমনা-শাহবাগ থানা, ৫৩, ৫৪, ৫৫, ৫৬, ৫৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে বিএনপির অভিযোগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “আমরা নির্বাচনে কোনন বিশৃঙ্খলা তৈরি করিনি। সকল জায়গায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হচ্ছে। কিন্তু তারা (বিএপি)আজকে নতুন ফর্মুলা হাজির করেছে। নির্বাচনের আগে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জন করছেন।”

আগামী দিনের সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে শেখ হাসিনা ঘোষিত উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে জানিয়ে আমু বলেন, “পাকিস্তানীরা শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে পারেনি বলেই তার ওপর বার বার হামলা চালিয়েছে। কিন্তু শেখ হাসিনা মারা যাননি। শেখ হাসিনার স্বপ্ন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলা।”

শিল্প মন্ত্রী বলেন, “১৯৪৭ সালে সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্পে দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে পাকিস্তান সৃষ্টির পর সেদিন আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র ক্ষমতায় যায়নি। ১৯৫৬ সালে আওয়ামী লীগ প্রাদেশিক পরিষদে সরকার গঠন করেছিলো। ৫৬ থেকে এই দেশের যত অর্জন সকল কিছুই আওয়ামী লীগের অর্জন, বঙ্গবন্ধুর অর্জন।”

তিনি বলেন, “নিন্দুকেরা বলেন বঙ্গবন্ধু রাজনীতিবিদ হিসেবে ভালো ছিলেন। কিন্তু দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছে। তাদের বলতে চাই বিশ্বের যেকোনো সরকারের চেয়ে বঙ্গবন্ধু সরকারের অর্জন অনেক বেশি। যুদ্ধবিদ্ধস্ত দেশে বঙ্গবন্ধুই এত দ্রুত আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছিলেন।

image_68206_0 সকল কলকারখানা চালু করতে পেরেছিলেন। ব্রিজ-কালভার্ট, রাস্তাঘাট মেরামত করতে পেরেছিলেন। খাদ্যের দাম মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্য ছিলো। কিন্তু যারা সমালোচনা করেন তারা এই সকল বিষয় চোখে পড়ে না। কারণ নিন্দুকদের দেখানোর মতো কিছু নেই।”

রমনা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল বাশারের সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, মুকুল চৌধুরী, ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল হক সবুজ, ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক সহিদুল ইসলাম মিলন প্রমুখ।

সম্মেলন উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ। প্রধান বক্তা ছিলেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী ও ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

LEAVE A REPLY