ঢাকা: ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রি.
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভ জন্মদিন উপলক্ষে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর সারাদেশব্যাপি একযোগে ৮০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। টিকা প্রদান কার্যক্রম ২৮ তারিখ সকাল ৯ টা থেকে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন পর্যন্ত চলতে থাকবে। এই কার্যক্রমের আওতায় ২৫ বছরের ঊর্দ্ধে ব্যক্তিদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। আগে থেকে নিবন্ধনকারীদেরকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে।”

আজ ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে অনলাইনে জুম অ্যাপের মাধ্যমে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত মিডিয়া ব্রিফিং এ অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

ব্রিফিংকালে জাহিদ মালেক আরো জানান, “টিকাদান কর্মসূচি সফল করতে একদিনে ৮০ লাখ মানুষের টিকা প্রাপ্তির লক্ষ্য পূরণ করতে দেশের ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদ, ১০৫৪টি পৌরসভা, ৪৪৩টি সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ডে টিকা দিতে ৩২,৪০৬ জন সরকারি ও ৪৮,০৫৯ জন স্বেচ্ছাসেবীসহ প্রায় ৮০ হাজার কর্মীর টিকাদানের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।”

এই টিকাদান কর্মসূচির আওতায় প্রতিটি ইউনিয়নে ৩টি বুথ, পৌরসভায় ১টি করে এবং সিটি কর্পোরেশনে ৩টি করে বুথ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকাদান কর্মসূচি সফল করতে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ মিডিয়া কর্মীদের নিকট বিশেষ সহযোগিতার অনুরোধ জানান।

দেশে করোনা শুরুর পর থেকে প্রয়োজনের তাগিদে স্বাস্থ্যখাত নানা বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে এবং সেসব অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে কোভিড মহামারী মোকাবেলা করে এখন বিশ্ববাসীর প্রশংসা লাভ করছে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, “দেশে মাত্র ১টি টেস্টিং ল্যাব ছিল। “এখন ৮২০টি টেস্টিং ল্যাব হয়েছে, ১৭ হাজার কোভিড বেড করা হয়েছে যার ৮৫ ভাগই এখন খালি হয়ে গেছে। করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যখাতের সফলতার কারণেই দেশে অর্থনীতি সচল রয়েছে, স্কুল-কলেজ খোলা সম্ভব হয়েছে, অফিস-আদালত চলছে। করোনা দেশ থেকে নির্মূল করতে সরকারের পাশাপাশি গণমাধ্যমের বিরাট ভূমিকা রয়েছে। সবাইকে একযোগে একসাথে কাজ করেই দেশ থেকে করোনা নির্মূল করতে হবে।”

ব্রিফিংকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম ও অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাথে যুক্ত ছিলেন।